মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৩rd ফেব্রুয়ারি ২০২১

আইসিটি বিষয়ক চলমান কার্যক্রম

প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে মানুষের জীবনমান উন্নত করাই ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ ভিশনের মূল লক্ষ্য। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড আইসিটি খাতে বিভিন্ন যুগোপযোগী পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করেছে।

“শেখ হাসিনার উদ্যোগ ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ” শ্লোগানটি সামনে রেখে ২০২০ সালের মধ্যে সরকার সারা বাংলাদেশের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে বদ্ধ পরিকর। উৎপাদিত বিদ্যুতের সদ্ব্যবহার ও অপচয় রোধ তথা স্বয়ংক্রিয় বিলিং সুবিধা সৃষ্টি করার জন্য ২০১১ সালে প্রি-পেমেন্ট মিটার এর প্রবর্তন করা হয়। বর্তমানে প্রি-পেমেন্ট মিটারসমূহ আরো আধুনিকায়ন করে অন-লাইন স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার এর স্ট্যান্ডার্ড প্রণয়নকরত: ২০২৫ সালের মধ্যে ১.০ কোটি প্রি-পেমেন্ট মিটার ক্রয়ের উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। 

পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকদের প্রি-পেইড মিটারের ভেন্ডিং কিংবা পোষ্ট পেইড মিটারের বিল প্রদানের জন্য এখন আর পল্লী বিদ্যুৎ অফিস প্রাঙ্গনে/ব্যাংকের বুথে গিয়ে লাইনে দাঁড়াতে হয় না। সেন্ট্রালাইজড অনলাইন বিলিং/ভেন্ডিং ডাটা গেটওয়ে এর মাধ্যমে গ্রাহক ঘরে বসেই তাঁর মিটার রিচার্জ/বিল প্রদান করতে পারেন।  রবি, গ্রামীনফোন, রকেট ইত্যাদির মোবাইল ওয়ালেট ব্যবহার করে গ্রাহক নিজের ফোন থেকে ভেন্ডিং/বিল প্রদান করার ফলে একদিকে যেমন সমিতির ভেন্ডিং ষ্টেশনে কার্যক্রম হ্রাস পেয়েছে অন্যদিকে গ্রাহক অসন্তোষ নেই বললেই চলে। 

বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড কর্তৃক সকল (৮০ টি) সমিতির সাথে একযোগে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে সমন্বয় সভা, গ্রাহকদের সাথে উঠান বৈঠক, মত বিনিময় সভা, অনলাইন ভিত্তিক ট্রেনিং প্রদান করা হয় ।ভিডিও কনফারেন্সিং এর ফলে যাতায়াত খরচসহ আনুষাঙ্গিক খরচ বিপুল পরিমানে হ্রাস পেয়েছে এবং দ্রুত নির্দেশনা দেয়ার ফলে কাজের গতিশীলতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এছাড়াও মহামারী করোনার এ সময়ে যে যার অবস্থান থেকে  ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে বিভিন্ন মিটিংও ট্রেনিং সেরে নিচ্ছেন ফলে কর্মকর্তা/ কর্মচারীদের স্বাস্থ্য ঝুকি হ্রাস পেয়েছে।

বাপবিবো আইসিটি পরিদপ্তর কর্তৃক বিতরণ ট্টান্সফরমারের লোড স্বয়ংক্রিয়ভাবে সনাক্তকরণের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় Maintenance এবং Load Management সম্পন্ন করার জন্যট্রান্সফর্মার মেইনটেনেন্স এন্ড লোড ম্যানেজম্যান্ট (TMLM)সফটওয়্যার বাস্তবায়ন করা হয়েছে ।

সনাতন বিদ্যুৎ সংযোগ পদ্ধতিতে বিদ্যমান সমস্যাসমূহকে হ্রাস করে গ্রাহক হয়রানি বন্ধকরণ, মধ্যসত্বভোগীদের দৌরাত্ব দূরীকরণ এবং সময় ও অর্থের সাশ্রয় করে সন্তোষজনক গ্রাহক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে আরইবি’র আইসিটি পরিদপ্তর  “পল্লী বিদ্যুৎ অনলাইন সংযোগ সিস্টেম” এর প্রবর্তনকরেছে। সারাদেশের ৮০ টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতিতে সিস্টেমটি চলমান আছে।

৮০টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বিদ্যুৎ বিল বিলিং সফটওয়্যারের মাধ্যমে পরিচালনা করা হয় এবং বিদ্যুৎ বিলের তথ্য সকল গ্রাহকদের এসএমএস এর মাধ্যমে জানানো হয়। ৮০ টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জন্য একটি ইউনিফাইড ইন্ট্রিগ্রেটেড সেন্ট্রালাইজড বিলিং সিস্টেম বাস্তবায়ন চলমান রয়েছে।

গ্রাহকদের বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্ট নানাবিধ অভিযোগ দ্রুততার সাথে নিষ্পত্তি করার লক্ষ্যে তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর অভিযোগ নিষ্পত্তি ব্যবস্থাপনা (ওয়ান পয়েন্ট) চলমান রয়েছে। ওয়ান পয়েন্টের মাধ্যমে একজন গ্রাহক যে কোন সমস্যা এক জায়গায় বসে দ্রুততার সাথে সমাধান পেয়ে থাকেন। সারাদেশের ৮০ টি পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রায় ৩ কোটি ৯ লক্ষ গ্রাহক এই সুবিধা পাচ্ছেন। এছাড়াও মোবাইল অ্যাপ“পল্লী বিদ্যুৎ সেবা” এর মাধ্যমে গ্রাহক সেবার মান উন্নয়নে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে গ্রাহক সেবার মান বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক দক্ষতা এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে বাপবিবোর্ড নানাবিধ পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

বাপবিবোতে সকল দাপ্তরিক কাজ ই-নথি এর মাধ্যমে সম্পন্ন হচ্ছে যার ফলে দাপ্তরিক কাজে গতিশীলতা আনয়নসহ স্বচ্চতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা যাচ্ছে। বাপোবিবোর সকল দপ্তর/পরিদপ্তর/প্রকল্প/সকল SE/Xen অফিসসমূহ এবং ৮০টি পবিসে ই-ফাইলিং বাস্তবায়ন করা হয়েছে। 

৮০টি সমিতির ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত তথ্য MIS সফটওয়্যারের মাধ্যমে প্রক্রিয়াকরণ করে প্রতিবেদন প্রণয়ন করা হয় এবং প্রতি মাসে বাপবিবোর ওয়েবসাইটে (www.reb.gov.bd) এMISপ্রকাশ করা হয়।

ষ্টোর ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার দ্বারা বাপবিবোর ৩ টি ওয়্যারহাউজ ও ৮০ টি সমিতির ওয়্যারহাউজের ম্যাটেরিয়াল / হার্ডওয়্যার আইটেমসমূহের Issue/ Returnসহ যাবতীয় কাজ করা হয়।

বাপবিবো/পবিস এর কম্পিউটার হার্ডওয়্যারসমূহ সুষ্ঠ ব্যবস্থাপনার স্বার্থে Hardware Management System উন্নয়ন করা হয়েছে যার বাস্তবায়ন চলমান রয়েছে।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আধুনিক উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলছে বাংলাদেশ। আইসিটি খাতকে সরকার গুরুত্বপূর্ণ খাত হিসেবে ঘোষণা করেছে।আইসিটি খাতের উন্নয়নকে আরও ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে বাপবিবো তার নিজস্ব জলবল ও বেকার যুবসম্প্রদায়ের জন্য আইসিটি বিষয়ক বিভিন্ন প্রশিক্ষণ আয়োজন করে থাকে। আউটসোর্সিং খাতকে আরও এগিয়ে নিতে মুজিব বর্ষে বাপবিবো প্রায় ৫০০০ হাজার শিক্ষিত বেকার যুবসম্প্রদায়কে ফ্রিল্যান্সিং ওয়্যারিং ইন্সপেকশনবিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড ও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জনবলকে দাপ্তরিক সকল কাজ ই-ফাইলিং এর মাধ্যমে করার জন্য নিয়মিত ই-হাউজ ই-ফাইলিং প্রশিক্ষণ কার্যক্রম সম্পন্ন করা হয়েছে।


Share with :

Facebook Facebook